বিশ্বের ব্যাখ্যাতীত রহস্য – পর্ব ২

রহস্য! শব্দটি শুনলেই একটা রোমাঞ্চকর অনুভূতি জেগে উঠে। কারণ প্রকৃতির মত মানুষও রহস্য ভালোবাসে। রহস্যজাল সিরিজের ১ম পর্বে আমরা পৃথিবীর সেরা ৪টি ব্যাখাতীত রহস্যময় ঘটনা শেয়ার করেছিলাম। আজ আমরা আপনাদের জন্য আরো ৪টি রহস্য এসেছি যার ব্যাখা এখন পর্যন্ত বিজ্ঞান দিতে পারে নি।

 ১. নাচের প্লেগঃ
১৫১৮ সালের জুলাই মাসে starsbourg নামক স্থানে Frau Troffea নামে একজন মহিলা হঠাৎ করেই রাস্তায় বের হয়ে নাঁচতে আরম্ভ করেন। এক সপ্তাহের মধ্যে ঐ মহিলার দলে আরো ৩৬ জন অংশগ্রহণ করে রাস্তায় অদ্ভুত ভঙ্গিতে নাঁচতে থাকেন। আগষ্ট মাসে নৃত্যরত মানুষের সংখ্যা দাঁড়ায় ৪০০। এদের মধ্যে বৃদ্ধ যারা ছিলেন তারা স্ট্রোকের কারণে মারা গেলেন, কেউ মারা গেলেন অতিরিক্ত দুর্বলতার কারণে। সেপ্টেম্বর মাসে এ মহামারীটি শেষ হয়ে যায়। সবচাইতে অদ্ভূত বিষয় হচ্ছে জার্মানি, সুইজারল্যান্ড ও হল্যান্ডেও একই রকমের মহামারী ছড়িয়ে পড়ে। গবেষকগণ কেউ কেউ এই মহামারীকে ব্যাখা করেছেন গণ হিস্ট্রিরিয়া হিসেবে, কেউ কেউ বলেছেন এক ধরণের অজানা বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছিলো starsbourg এর মানুষ। এ মহামারীর সঠিক ব্যাখা এখন পর্যন্ত মেলেনি।

২. অস্বস্তিকর শব্দঃ
২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসে CIA এর একজন কর্মকতা আমেরিকার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে রির্পোট করেন, তিনি তার ঘরে অদ্ভূত একটি শব্দ শুনতে পান যার কারণে মাথা ব্যাখা, ঘুম না হওয়া এবং বমি বমি ভাব হচ্ছে। দুইদিন পরে আরও দুজন CIA অফিসার একই লক্ষণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। কিন্তু চিকিৎসকগণ এটাকে মানসিক রোগ হিসেবে চিকিৎসা করেন। ২০১৮ সালের শেষের দিকে এ রোগে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ৩৯ জন। আক্রান্তদের সবাই তাদের ঘরে বা হোটেলে অদ্ভূত এক যন্ত্রণাদায়ক শব্দ শুনতে পান। আক্রান্তদের কেউ কেউ বলেন শব্দটি হচ্ছে অনেকটা মেঝেতে মার্বেল গড়ানোর শব্দের মত, কেউ বা বলেন ডিজেল ভর্তি চলন্ত ট্রাকের শব্দের মত, কারো মতে শব্দটি হচ্ছে বোমা বিস্ফোরণের মত। পৃথিবীর বাঘা বাঘা বিজ্ঞানীগণ এখন পর্যন্ত এর ব্যাখা দিতে পারেনি। গবেষকগণ মনে করেন এটি কিউবা এজেন্টদের নতুন একটি অস্ত্র যদিও CIA এর মতে এরকম কোনো অস্ত্রের নাম এখন পর্যন্ত শোনা যায়নি।

৩। UFO রহস্যঃ
১৯৬৭ সালের ৪ অক্টোবর রাতে কানাডার নোভা স্কটিয়া রাজ্যের পুলিশের কাছে রির্পোট আসে একটি অদ্ভূত বস্তু বিকট শব্দ করে Shag উপকুলের দিকে যাচ্ছে। ৫ মিনিট পরে পুলিশ যখন নির্দিষ্ট স্থানে পৌছায় তখন ১১ জন মানুষ সাক্ষী দেয় যে তারা ডিমের মত দেখতে উজ্জ্বল একটি বস্তু আকাশে উড়তে দেখেছে এবং বস্তুটি বিকট এক শব্দ করে shag উপকূলে ডুবে যাচ্ছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছিয়ে দেখে অদ্ভূত এক বস্তু পানিতে ডুবে যাচ্ছে।

ডুবুরিরা shag উপকূলের চারপাশে তন্ন তন্ন করে খুঁজেও কোনো ধ্বংসাবশেষ বা মৃতদেহ পায়নি। কানাডার বিমান বাহিনী থেকে পরদিন জানানো হয় তাদের কোনো প্লেন নিখোঁজ হয়নি। অদ্ভূত এই ঘটনাটির কোনো ব্যাখা প্রদান করা হয়নি।

৪। Dyaltov উপত্যকার রহস্যঃ
১৯৫৯ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে ৯  জন দক্ষ পর্বতারোহী dyatlov উপত্যকায় নিখোঁজ হন। ২৬ শে ফেব্রুয়ারী অনুসন্ধানকারী একটি দল তাদের খুঁজতে বের হয়। সেখানে তারা পরিত্যক্ত তাঁবু দেখতে পান কিন্তু কোনো জনমানুষের চিহ্ন ছিলো না আশেপাশে। তাঁবু থেকে একটু দূরে বরফের ভিতর তারা দুটি অর্ধনগ্ন লাশ আবিষ্কার করেন এবং একমাস চেষ্টার পর জঙ্গলের ভিতর থেকে আরো ৭ টি লাশ উদ্ধার করেন। লাশগুলোর ভিতর কোনো লাশের চেহারায় ফুটে উঠেছিলো ভয়ানক আতংক, কারো জিহ্বা ছিলো কাটা ছিলো, একজনের লাশ ছিলো বিভৎস ভাবে পোড়া, কারো লাশে পাওয়া গিয়েছিলো ব্যাপক মাত্রায় তেজস্ক্রিয়তা। এখন পর্যন্ত তাদের মৃত্যুর আসল কারণ উদঘাটন করা সম্ভব হয়নি। ইয়েতি, হ্যালুসিনেশন, ভৌতিক কোনো বস্তু, KGB এর কোনো গোপনীয় পরীক্ষা ইত্যাদি অনেক যুক্তিই দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আসল রহস্যের কোনো সুরাহা হয়নি।

রহস্যময় এ পৃথিবীতে এরকম ব্যাখাহীন রহস্যময় ঘটনা প্রায়ই ঘটে চলেছে। এ সমস্ত ব্যাখাহীন ঘটনা আমাদের স্মরণ করিয়ে দেয় আমরা বিশাল প্রকৃতির এক ক্ষুদ্র অংশমাত্র এবং আমাদের ক্ষমতাও সীমাবদ্ধ। সবাই ভালো থাকুন, নিরাপদে ঘরে অবস্থান করুন। নিয়মিত আমাদের ভিডিওগুলো পেতে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন।

Related Post

Leave a Comment